Home রংপুর গঙ্গাচড়া গঙ্গাচড়ায় অব্যবস্থাপনায় উপজেলা পর্যায়ে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

গঙ্গাচড়ায় অব্যবস্থাপনায় উপজেলা পর্যায়ে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

117
0
SHARE
Social Media Sharing

নিজস্ব সংবাদদাতা, গঙ্গাচড়া (রংপুর)
রংপুরের গঙ্গাচড়ায় আজ ১২ ফেব্রুয়ারী সোমবার উপজেলা শিক্ষা অফিসের উদ্যোগে অব্যবস্থাপনার মধ্যদিয়ে উপজেলা পর্যায়ে আন্তঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরনের আয়োজন করা হয়। এতে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম আসাদুজ্জামান এর বিরুদ্ধে শিক্ষকরা ক্ষোভ প্রকাশ করছে।
সরজমিনে দেখা যায়, উপজেলা পরিষদ মাঠে আয়োজিত ক্রীড়া অনুষ্ঠানে জাতীয় ও ক্রীড়া পতাকা উত্তোলন করা হয়নি। মাঠে সাজসজ্জা, মঞ্চের কোন ব্যবস্থা ছাড়াই অবস্থাপনার মধ্যদিয়ে ক্রীড়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করা হয়। এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অর্ধশতাধিক শিক্ষক জানান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার গোলাম আসাদুজ্জামান সরকারি বরাদ্দের টাকা উত্তোলন করে তিনি নিজেই ক্রীড়া সামগ্রী ক্রয় করে অন্যান্য উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসারগণের দায়িত্ব দিয়ে প্রশিক্ষণের নামে অন্যত্র চলে যান। হঠাৎ করে অনুষ্ঠান শুরুর একদিন আগে মোবাইল মেসেজ করে এ বিষয়ে জানানো হয়। এতে অনেকে বিদ্যালয় ছুটির পর মেসেজ পেয়েছেন, ফলে তাদেরকে সমস্যায় পড়তে হয় শিক্ষার্থীদের সংবাদ দিতে। শিক্ষকরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন তারা তরিঘরি করে শিক্ষার্থীদের সংবাদ দিয়ে মাঠে এসে দেখেন অব্যবস্থাপনা। জাতীয় ও ক্রীড়া পতাকা উত্তোলনের কোন ব্যবস্থা নেই, মাঠ সাজসজ্জা করা হয়নি, তৈরি নেই মঞ্চ। অতিথি, অভিভাবক ও শিক্ষকদের নেই বসার ব্যবস্থা। উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবগত করলে তিনি এ আয়োজন সর্ম্পকে অবগত নন বলে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বলে শিক্ষকরা জানান। শিক্ষকরা আরো জানান, তারা অব্যবস্থাপনায় ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ওই দিনের জন্য বাতিল করতে চাইলে, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিক্ষার্থীদের হয়রানী বিবেচনা করে এভাবেই পালনের পরামর্শ দেন। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা না থাকায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ধরণের আয়োজনের বিষয়ে উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসারদের সাথেও কথা বলেন। এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম আসাদুজ্জামানের সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিফ করেন নি। উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফছিউল আলম বলেন আজকের আয়োজন সর্ম্পকে তাকেও জানানো হয়নি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ এনামুল কবির এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন মন্তব্য করেননি। এদিকে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা উপজেলা পরিষদ হলরুমেই করা হয়। এ রকম আয়োজনে মাঠে আসা অভিভাবকরাও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।


Social Media Sharing

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here